এশিয়ার প্রাচীনতম বাংলা সংবাদপত্র প্রথম প্রকাশ ১৯৩০

প্রিন্ট রেজি নং- চ ৩২

২৩শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
১০ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
১৪ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

নবীগঞ্জের তাহসিন হত্যার অন্যতম আসামি শাফিকে ঢাকা থেকে গ্রেপ্তার

Daily Jugabheri
প্রকাশিত ১৯ মার্চ, মঙ্গলবার, ২০২৪ ০০:৪৩:৪২
নবীগঞ্জের তাহসিন হত্যার অন্যতম আসামি শাফিকে ঢাকা থেকে গ্রেপ্তার

যুগভেরী ডেস্ক ::: হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার নবীগঞ্জ সরকারি কলেজের ছাত্র সৈয়দ রাইসুল হক তাহসিন (১৮) হত্যা মামলার অন্যতম আসামি শাফি আহমদকে (২৫) গ্রেপ্তার করেছে থানা পুলিশ।   সোমবার (১৮ মার্চ) সকাল ১১টায় নবীগঞ্জ থানার এসআই রাজিব রহমান ও এসআই পিযুষের নেতৃত্বে একদল পুলিশ রাজধানী ঢাকার উত্তরা এলাকায় অভিযান চালিয়ে অন্যতম আসামি শাফি আহমদকে গ্রেপ্তার করে।  গ্রেপ্তারকৃত শাফি আহমদ নবীগঞ্জ উপজেলার এপি সাং রাজনগর প্রকাশিত অভয়নগর পৌরসভা সাং রতনপুর কদরত আলী ছেলে।   জানা যায়, গত ২৭ ফেব্রুয়ারি পরীক্ষার খাতা দেখানো নিয়ে মান্নার সাথে তাহসিনের কথা কাটাকাটি হয়। পরে পরীক্ষার হল থেকে বের হয়ে মান্না ও তার সাথীরা তাহসিনের মুখের উপর থু থু ফেলে। এনিয়ে তাদের মাঝে বিরোধের সূত্রপাত হয়। এদিন বিকালে রাজা কমপ্লেক্সের পিছনে তাহসিন ও মাহি চা খেতে গেলে আসামিরা তাদেরকে গালিগালাজ করে এবং মারতে উদ্যত হয়। এসময় স্থানীয় লোকজন তাদেরকে সরিয়ে দেন। পরে রাত ৯টার দিকে তাহসিন ও মাহিন নবীগঞ্জ পৌরসভায় আয়োজিত বইমেলা থেকে ফেরার পথে ওসমানী রোডের চৌদ্দহাজারি মার্কেটের সামনে প্রতিপক্ষের লোকজন ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাহসিন ও মাহিকে আঘাত করে। এসময় তাহসিন গুরুতর আহত হয়। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে সিলেট প্রেরণ করেন। অ্যাম্বুলেন্স যোগে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথিমধ্যে তাহসিন মারা যায়।

পরদিন ২৮ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় নবীগঞ্জ জেকে উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে নিহত কলেজ ছাত্র তাহসিনের জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। পরে বানিয়াচং উপজেলার কালাইনজুড়া গ্রামে তাহসিনের দাফন করা হয়।

হত্যাকাণ্ডের ৪ দিন পর ৩ মার্চ বিকালে ১১ জনের নাম উল্লেখ করে ও ৪/৫ জন আসামি অজ্ঞাত রেখে নবীগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন নিহতের মা মাহফুজা সুলতানা।

মামলাটির তদন্তভার দেওয়া হয় থানার এসআই রাজিব রহমানকে। সোমবার ঢাকার উত্তরা এলাকায় অভিযান চালিয়ে মামলার অন্যতম আসামি শাফি গ্রেপ্তার করা হয়।

নবীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাসুক আলী গ্রেপ্তারের সত্যতা নিশ্চিত করে তিনি বলেন, নবীগঞ্জের আলোচিত কলেজছাত্র তাহসিন হত্যা মামলার প্রধান আসামি মান্নাকে গ্রেপ্তার দুইদিন পরে, অন্যতম আসামি শাফি আহমদ গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়েছি। অপর আসামিদের ধরতেও পুলিশের অভিযান অব্যাহত আছে। আশা করছি দ্রুত সময়ের মধ্যে তাদেরকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হব।

সংবাদটি ভালো লাগলে স্যোশাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন