এশিয়ার প্রাচীনতম বাংলা সংবাদপত্র প্রথম প্রকাশ ১৯৩০

প্রিন্ট রেজি নং- চ ৩২

১২ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
২৮শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
৬ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি

ব্রিটেনে প্রথমবারের মত শুরু হতে যাচ্ছে শাহ আবদুল করিম উৎসব

Daily Jugabheri
প্রকাশিত ০৪ জুলাই, বৃহস্পতিবার, ২০২৪ ০২:০৮:২১
ব্রিটেনে প্রথমবারের মত শুরু হতে যাচ্ছে শাহ আবদুল করিম উৎসব

 যুগভেরী ডেস্ক ::: প্রথমবারের মত ব্রিটেনের মাটিতে শুরু হতে যাচ্ছে বাংলাদেশের কিংবদন্তী বাউল সম্রাট শাহ আবদুল করিম উৎসব ২০২৪ইং। বর্ণিল আয়োজনে এ উৎসবকে সাফল্যমন্ডিত করতে এক প্রস্তুতি সভার আয়োজন করা হয়েছে। বুধবার (০৩ জুলাই) দুপুরে ইষ্ট লন্ডনের হোয়াইট চপল এলাকার বিজনেস সেন্টারে হলরুমে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়। আরিয়ান ফিল্মস প্রোডাকশন ও গ্লোব টিভির যৌথ উদ্যোগে বাউল করিম উৎসব (লন্ডন) এর ফাউন্ডার চেয়ারম্যান তাজরুল ইসলাম তাজ এর সভাপতিত্বে ও সোহেল আহমদ এর পরিচালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন, লন্ডন রেডব্রিজের প্রাক্তন মেয়র জোৎস্না ইসলাম , টাওয়ার হ্যামলেটস এর সাবেক স্পিকার আহবাব হোসেন, ব্রিটিশ ফিল্মস ইন্সটিটিউট ডেভিড শেপার্ড, হলিউড ষ্টার লিওন। সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন , নুরুল ইসলাম, আব্দুস সালাম, হেলেন ইসলাম, শিমুল তাজবির, সাহাদুল ইসলাম, পাবেল চৌধুরী, চৌধুরী মুরাদ, সাদেক আহমদ, মতিউর রহমান, অনুপম রহমান, আবু তাহের আজিজ, ইসহাক ইসলাম, শাহরুখ আহমেদ, কিষ চৌধুরী, রাজু আহমেদ, জেবুন্নেছা রিতা, আসিফ আহমদ, রাজ শেখ, আলম, বন্নি, তামিম চৌধুরী, জাওয়াদ ইবনে আজম, মিসবাহ চৌধুরী প্রমুখ। এবারের শাহ আব্দুল করিম উৎসবে অংশ নিচ্ছেন ব্রিটেনের নানা শ্রেনী পেশার শিল্পীরা। আগামী ৬ই অক্টোবর রবিবার পূর্ব লন্ডনের ব্রেডিআর্ট সেন্টারে উৎসবটি অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এ অনুষ্ঠানকে সফল ও স্বার্থক করে তুলতে ব্রিটেনবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন শাহ আব্দুল করিম উৎসব (লন্ডন) ফাউন্ডার চেয়ারম্যান তাজরুল ইসলাম তাজ। উল্লেখ্য, সুনামগঞ্জের দিরাইয়ের বরাম হাওরঘেঁষা উজানধলের পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া কালনী নদীর পাড়ে জীবন কাটিয়েছেন শাহ আবদুল করিম। তার কালজয়ী অসংখ্য গান বাংলাদেশের সীমানা পেরিয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও ছড়িয়ে পড়ে। কালোত্তীর্ণ লোক গানের রচয়িতা বাউল সম্রাট শাহ্ আবদুল করিমকে গানে গানে স্মরণ করবে দেশ ও বিদেশের ভক্ত-অনুসারীরা। একুশে পদক প্রাপ্ত বাউল সম্রাট শাহ আবদুল করিম। তার দর্শন, চিন্তা ও চেতনায় গণ-মানুষের পক্ষে গানকে তিনি অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করেছেন। তিনি আধ্যাত্মিক ও বাউল গানের দীক্ষা লাভ করেছেন কামাল উদ্দীন, সাধক রশীদ উদ্দীন, শাহ ইব্রাহীম মাস্তান বকশ এর কাছ থেকে। তিনি শরীয়তী, মারফতি, নবুয়ত, বেলায়া সহ সবধরনের বাউল গান এবং গানের অন্যান্য শাখার চর্চাও করেছেন। তিনি তার গানের অনুপ্রেরনা পেয়েছেন প্রখ্যাত বাউল সম্রাট ফকির লালন শাহ, পুঞ্জু শাহ এবং দুদ্দু শাহ এর দর্শন থেকে। বাউল গানের জীবন্ত কিংবদন্তী শাহ আবদুল করিম ১৯১৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি সুনামগঞ্জের দিরাই থানার উজানধল গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন এবং ২০০৯ সালের ১২ই সেপ্টেম্বর বাউল সম্রাট শাহ আবদুল করিম মৃত্যু বরণ করেন।

সংবাদটি ভালো লাগলে স্যোশাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন