এশিয়ার প্রাচীনতম বাংলা সংবাদপত্র প্রথম প্রকাশ ১৯৩০

প্রিন্ট রেজি নং- চ ৩২

১৪ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
৩০শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
৮ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি

সংকটের চক্রে ঘূর্ণায়মান দিশাহীন বাজেট: বাসদ

Daily Jugabheri
প্রকাশিত ০৯ জুন, রবিবার, ২০২৪ ১৯:২৫:৫৯
সংকটের চক্রে ঘূর্ণায়মান দিশাহীন বাজেট: বাসদ

যুগভেরী ডেস্ক ::: ২০২৪-২০২৫ সালের প্রস্তাবিত বাজেট প্রত্যাখ্যান করে বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল -বাসদ সিলেট জেলা শাখার উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। অদ্য ৯জুন রবিবার দুপুর ১টায় সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সামনে সমাবেশ শেষে মিছিল বের হয়ে কোর্ট পয়েন্টে গিয়ে শেষ হয়।বাসদ সিলেট জেলা আহ্বায়ক আবু জাফর এর সভাপতিত্বে বিক্ষোভ সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ও বক্তব্য রাখেন বাসদ নেতা মামুন বেপারি, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট এর কেন্দ্রীয় কমিটির প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হারুনুর রশীদ, ছাত্র ফ্রন্টের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য বিশ্বজিৎ নন্দী, শ্রমিক ফ্রন্ট এর মনজুর আহমদ,বাচ্চু মিয়া, এরশাদ আহমদ, জুয়েল আহমদ, ইয়াছিন আহমদ, হারুন মিয়া,প্রমূখ।

সমাবেশে বক্তারা ২০২৪-২৫ অর্থবছরের বাজেটকে সংকটের চক্রে ঘূর্ণায়মান দিশাহীন বাজেট বলে আখ্যায়িত করে বলেন বিগত বছরের অর্থনৈতিক সংকটের কারণ চিহ্নিত করে দূর না করার দিক নির্দেশনা বাজেটে না থাকায় অর্থনীতি সংকটের চক্রেই ঘুরপাক খেতে থাকবে। বক্তারা দুর্নীতি, মূল্যস্ফীতি, টাকা পাচার, ব্যাংক লুটের যে মিলিত চক্র দেশের মানুষের দুর্দশা বাড়িয়েছে তা নিরসনে কোনো উদ্যোগ না নিয়ে জনগণের ওপর করের বোঝা বাড়ানোর চেষ্টা হয়েছে। বাজেট নিয়ে সরকারি মহলের বাগাড়ম্বর দিয়ে অর্থনীতির সংকট দূর হয় না। প্রয়োজন কার্যকর পদক্ষেপ, সে ধরনের পদক্ষেপ দৃশ্যমান হয়নি এবারের বাজেটে। বাজেটের নীতি কৌশল একই থাকায় এবারের বাজেট অতীতের বাজেটের মতোই ফল নিয়ে আসবে।

বক্তারা বলেন,বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী তিন মাসেই ব্যাংকগুলোতে খেলাপি ঋণ বেড়েছে ৩৬ হাজার কোটি টাকার বেশি। গত মার্চের শেষে ব্যাংকের খেলাপি ঋণ বেড়ে হয়েছে ১ লাখ ৮২ হাজার ২৯৫ কোটি টাকা, যা বিতরণ করা মোট ঋণের ১১ দশমিক ১১ শতাংশ। গত ডিসেম্বরে খেলাপি ঋণের হার ছিল ৯ শতাংশ। অর্থনীতিবিদদের মতে খেলাপী ঋণের পরিমাণ বাস্তবে ৪ লক্ষ কোটি টাকার বেশি। দেশে এর আগে খেলাপি ঋণ বেড়ে কখনো এতটা হয়নি। একদিকে ঋণ খেলাপি বাড়ছে অন্যদিকে সরকার বাজেটে দেশের ব্যাংক থেকে ১ লাখ ৩৭ হাজার ৫০০ কোটি টাকা ঋণ নেয়ার ঘোষণা দিয়েছে। ফলে দেশের অর্থনীতিতে বিরুপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হবে। একদিকে ডিজিটাল থেকে স্মার্ট বাংলাদেশের শ্লোগান অন্যদিকে ক্রমাগত মুঠোফোনে কথা বলা ও ইন্টারনেট সেবার উপর ক্রমবর্ধমান ভ্যাট আরোপের নিন্দা করে বক্তারা বলেন, ১০০ টাকার টক টাইম পেতে এখন গ্রাহককে দিতে হবে ১৩৯ টাকা। বহুল প্রচারিত মেট্রো রেলেও ভ্যাট আরোপ করা হচ্ছে। যা জনজীবনে ভোগান্তি বাড়াবে। শিক্ষা, কৃষি, স্বাস্থ্য ও কর্ম সংস্থানকে প্রধান গুরুত্ব দেয়ার দাবি থাকলেও এসব খাতে গতানুগতিক বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

বক্তারা তিনি ঋণ নির্ভর ঘাটতি বাজেট না করে গণমুখী বাজেট প্রণয়নের দাবি জানান।

সংবাদটি ভালো লাগলে স্যোশাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন