:: 25-11-2020  
menu
(পরীক্ষামূলক সম্প্রচার)

জকিগঞ্জের প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরী নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগ

নিজস্ব সংবাদদাতা, জকিগঞ্জ : সিলেট জেলার জকিগঞ্জ উপজেলার ৩৯টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরী কাম নৈশ প্রহরী নিয়োগে দুর্নিতির অভিযোগ ও নিয়োগ বাতিলের দাবীতে গতকাল সোমবার পৌরশহরে মানব বন্ধন করেছেন নিয়োগ বঞ্চিত প্রাথীরা। তারা অভিযোগ করেন আর্থিক লেনদেনের মাধ্যমে এ নিয়োগ প্রক্রিয়া চুড়ান্ত করা হয়েছে। তারা অভিযোগ করেন, এ নিয়োগে কোটি টাকার লেনদেন হয়েছে।

News image

এদিকে রোববার প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা মোস্তাফিজুর রহমান ফিজা নিয়োগ স্থগিতের ঘোষনা দেন। সিলেট সার্কিট হাউসে কানাইঘাটের শিক্ষকদের নিয়ে এক মতবিনিময় সভায় জকিগঞ্জেরসুলতানপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরী নিয়োগে দুর্নীতির অভিযোগ করেন জকিগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও মহানগর যুবলীগের সদস্য সাজু ইবনে হান্নান খান। জকিগঞ্জে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরী নিয়োগ স্থগিতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সিলেটের জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলাম।

ঐ বৈঠকে সভাপতিত্বকারী কানাইঘাটের সাতবাক ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমদ পলাশ জানান, অভিযোগ পেয়ে মন্ত্রী নির্বাচনের পূর্ব পর্যন্ত জকিগঞ্জ উপজেলার ৩৯ জন দপ্তরী নিয়োগ স্থগিতসহ সারাদেশের প্রাথমিক দপ্তরী নিয়োগ স্থগিত করার জন্য প্রাথমিক গণশিক্ষা সচিব ও  ডিজিকে মৌখিক নির্দেশ দিয়েছেন। জকিগঞ্জের নিয়োগ বন্ধের জন্য সিলেটের জেলা প্রশাসক, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার ও জকিগঞ্জ উপজেলা শিক্ষা অফিসারকে নির্দেশ দেন। 

বিভিন্ন বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতিগণও অভিযোগ করেন, বড় অংকের লেনদেনের মাধ্যমে নিয়োগে কারসাজি করা হয়েছে।

নিয়োগ কমিটির সদস্য প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা কাজী সাইফুল ইসলাম জানান, জকিগঞ্জের প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরী নিয়োগ স্থগিত করা হয়েছে। 

নিয়োগ কমিটির সদস্য এমপি প্রতিনিধি নোমান উদ্দিন জানান, নিয়োগে আমাদের প্রদত্ত নাম্বার পরিবর্তন করে ইচ্ছেমত নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

নিয়োগ কমিটির সদস্য উপজেলা চেয়ারম্যান প্রতিনিধি এডভোকেট কাওছার রশিদ বাহার বলেন, নিয়োগ নিরপেক্ষ হওয়ার ব্যাপারে আমার পক্ষ হতে শতভাগ চেষ্টা করেছি। কিন্তু কেউ ম্যানেজ হয়ে থাকলে করার কিছু ছিল না।  এ ব্যাপারে তিনি তদন্ত কমিটি গঠন করার আহবান জানান। 

নিয়োগ কমিটির সভাপতি ইউএনও বিজন কুমার বলেন, নিয়োগ নিয়ে অনিয়মের ব্যাপারে আমি অবগত হয়েছি। নাম্বার পরিবর্তনের বিষয়টি তিনি অস্বীকার করে বলেন, নিয়োগ যখন প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে তখন এই নিয়োগ বাতিল করাই উত্তম।  

উল্লেখ্য, ১১, ১২ ও ১৩ অক্টোবর জকিগঞ্জের ৩৯টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরী নিয়োগের জন্য ৩৫৬জন প্রার্থী মৌখিক পরীক্ষায় অংশ নেন। ১৩ অক্টোবর শনিবার রাত সাড়ে দশটায় ফলাফল প্রকাশ হয়।